বাংলাদেশের সেরা ইনফার্টিলিটি বা বন্ধ্যাত্ব বিশেষজ্ঞদের তলিকা

বর্তমান সময়ে সন্তান ধারনে অক্ষমতা চরম আকার ধারন করেছে।দিন দিন এ সমস্যা বেড়েই চলেছে। যার ফলে প্রতিনিয়ত প্রয়োজন পড়ছে এ বিষয়ে অভিজ্ঞ চিকিৎসকের খোঁজ। 

আজকের এ আর্টিকেলে আমরা দক্ষ কিছু দেশী বিদেশী চিকিৎসকের তালিকা দিব, এছাড়াও এ বিষয়ে ডিটেইলস আলোচনা করব।

বাংলাদেশের সেরা ইনফার্টিলিটি বা বন্ধ্যাত্ব বিশেষজ্ঞদের তলিকা

{getToc} $title={Table of Contents} $count={Boolean}

বন্ধ্যাত্ব বা ইনফার্টিলিটি কি?

কোন দম্পতি যদি কোন ধরনের জন্ম বিরতি করন পদ্ধতি ছাড়াই পূর্ণ এক বছর একসঙ্গে বসবাসের পরও সন্তান জন্মদানে ব্যর্থ হন তবে একে বন্ধ্যাত্ব বা ইনফার্টিলিটি সমস্যা বলা হয়ে থাকে। বর্তমান সময়ে এই সমস্যাটি প্রকট আকার ধারণ করেছে। যার ফলে প্রতি নিয়তই মানুষকে শরণাপন্ন হতে হচ্ছে বিভিন্ন ডাক্তারের।

বন্ধ্যাত্ব মূলত দুই ধরনের হয়ে থাকে, প্রথমত প্রাইমারি অর্থাৎ যাদের কখনোই কোন সন্তান হয়নি, অপর দিকে দ্বিতীয় তাহলে সেকেন্ডারি অর্থাৎ যাদের একবার গর্ভধারণ হয়েছে কিন্তু এরপর থেকে আর একবারও গর্ভধারণ হয়নি।

বিভিন্ন গবেষণা থেকে এটা জানা যায় যে ৮০% দম্পতি বিয়ের প্রথম বছরের সন্তান ধারণ করতে সক্ষম হয়। অপরদিকে ১০% দম্পতি বিভিন্ন চেষ্টার মাধ্যমে দ্বিতীয় বছর সন্তান ধরনের সক্ষম হয়। বাকি ১০% দম্পতি সন্তান ধারণে অক্ষম অর্থাৎ তারা বিভিন্ন সমস্যা বা রোগে আক্রান্তর কারণে সন্তান ধারণ করতে পারে না সেক্ষেত্রে তাদেরকে ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে হয়। উপযুক্ত চিকিৎসার মাধ্যমে তারা পরবর্তীতে সন্তান ধরনের সক্ষম হয়।

এটা একটি গাইনি সমস্যা এজন্য এটার ঘরোয়া কোন পদ্ধতি নেই ভালো ফলাফল পাওয়ার। এটার জন্য প্রয়োজন উপযুক্ত চিকিৎসা, একজন ভালো বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হওয়া। অনেক সময় দেখা যায় অনেকেই কবিরাজি ওষুধ কিংবা হুজুরের পড়া দিয়ে চেষ্টা করে সন্তান ধারণের জন্য। কিন্তু এটা করা উচিত নয় কারণ এটা একটি জটিল প্রক্রিয়া।

বন্ধ্যাত্বের সমস্যার জন্য বাংলাদেশের নারীরা সবচেয়ে বেশি নিগ্রহের মধ্যে পড়ে। অথচ বন্ধ্যাত্ব নারী-পুরুষ উভয়েরই হতে পারে। সন্তান ধরনের অক্ষমতার ক্ষেত্রে নারী এবং পুরুষের সংখ্যা প্রায় একই রকম এটি একটি গবেষণায় প্রাপ্ত ফলাফল।

যদিও সামাজিক ভাবে এবং পারিবারিক ভাবে নারীদের কে বেশি নিগ্রহের শিকার হতে হয়।বাংলাদেশের কত শতাংশ নারী এই সমস্যায় ভুগছেন সেটির কোন পরিসংখ্যান এখনো জানা নেই।

নারীরা প্রধানত কি কারণে সন্তান ধারণে অক্ষম হয়ে থাকেন, সেগুলো নিয়ে নিচে কিছুটা ধারণা দেওয়া হলো । যেমন জরায়ুর কিছু সমস্যা থাকে যা জন্মগত হতে পারে আবার অসুখের কারণে হতে পারে।কিছু অসুখ আছে, যেমন: ওভারিয়ান চকলেট সিস্ট, এন্ডোমেট্রিওসিসের কারণে হতে পারে।হরমোনের কারণেও হতে পারে। যেমন থাইরয়েডের সমস্যার কারণে হতে পারে। আর যৌনবাহিত রোগের কারণে মেয়েদের প্রজনন অঙ্গগুলোর ক্ষতি করে। সেজন্য বন্ধ্যাত্ব হতে পারে।

পুরুষদের বন্ধ্যাত্বতার কারন

শুক্রাণু পরিমাণে কম থাকা।শুক্রাণু ডিম ফার্টিলাইজ করতে পারে না।টেস্টোস্টেরন হরমোনও 'সিক্রেশন' হতে হবে।প্রজনন অঙ্গে আঘাত পেলে। প্রজনন অঙ্গে যক্ষ্মা। ছোটবেলায় মাম্পস।ডায়াবেটিস। এমনকি মাথায় চুল গজানোর ঔষধও পুরুষদের সন্তান ধারণের অক্ষমতার জন্য দায়ী হতে পারে ।

বন্ধ্যাত্ব এড়াতে কি করতে হবে

স্বাস্থ্যসম্মত জীবন যাপনে এগুলো এড়ানো যায়। এক্ষেত্রে নিচের পদ্ধতি অনুসারে জীবন যাপন করতে হবে।

  • মেয়েদের খাদ্যাভ্যাস ঠিক করতে হবে।
  • ক্যালরি কম খপতে হবে।
  • ঘরে রান্না খাবার খাওয়।
  • রেগুলার ব্যায়াম করা।
  • শরীরের স্বাভাবিক ওজন রক্ষা করা।
  • দিনে ঘুমানো, রাতে জেগে থাকার মত অভ্যাস বদলানো।
  • বয়স থাকতে বাচ্চা নেয়া

এছাড়া, নারীদের ডিম্বাণু বৃদ্ধির জন্য ঔষধ, হরমোন ইনজেকশন দেয়া হয় ।

বাংলাদেশের সেরা বন্ধ্যাত্ব চিকিৎসকের তালিকা

অধ্যাপক ডাঃ পাপিয়া সুলতানা

ডিগ্রি : এমবিবিএস, বিসিএস (স্বাস্থ্য), এফসিপিএস (গাইনী)
ঠিকানা: তিনি সহকারী অধ্যাপক (গাইনী ও প্রসূতি বিভাগ)- স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ ও মিটফোর্ড হাসপাতাল, ঢাকা

অধ্যাপক ডাঃ শাহানাজ আক্তার জাহান

ডিগ্রি : তিনি এমবিবিএস, এমএস (অবস এন্ড গাইনী), এফসিপিএস (এফপি), ইনফারটিলিটিতে উচ্চতর প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত
ঠিকানা: তিনি বন্ধ্যত্ব, গাইনী ও প্রসূতি রোগ বিশেষজ্ঞ ও সার্জন। সহকারী অধ্যাপক - মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ঢাকা।

প্রফেসর বিগ্রেডিয়ার জেনারেল (অব:) ডাক্তার আঞ্জুমান আরা বেগম (অবস এন্ড গাইনী)

ডিগ্রি : এমবিবিএস, ডিজিও,এম এস, Fellow in Reproductive Medicine, Endocrinology and Infertility (Test - Tube Baby) ইনফারটিলিটি বা বাদ্ধ্যাত্য স্পেশালিষ্ট
ঠিকানা : আলোক হেলথকেয়ার এন্ড হাসপাতাল ঢাকা
ফোন নাম্বার : ০১৯১৫৪৪৮৪৯১, ০১৭১১০৭০১২৪

অধ্যাপক ডাঃ জান্নাতুল হোসনা

ডিগ্রি : তিনি এমবিবিএস (ঢাকা), ডিজিও (গাইনী এন্ড অবস), এমসিপিএস (গাইনী এন্ড অবস)
ঠিকানা: তিনি সহকারী অধ্যাপক (গাইনী বিভাগ)- শিশু-মাতৃ স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, ঢাকা।

অধ্যাপক ডাঃ লুবনা রহমান

ডিগ্রি : তিনি এমবিবিএস, বফিলে (স্বাস্থ্য), ডিজিও।
ঠিকানা: তিনি সহকারী অধ্যাপক (গাইনী এন্ড অবস)। ইজি ল্যাব কনসালটেশন সেন্টার।

অধ্যাপক ডাঃ রাশিদা আক্তার

ডিগ্রি : তিনি এমবিবিএস, ডিজিও (গাইনী এন্ড অবস), এমসিপিএস, এফসিপিএস (গাইনী এন্ড অবস)।
ঠিকানা: তিনি প্রসূতি ও স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ এবং সার্জন। সহকারী অধ্যপক (গাইনী এন্ড অবস বিভাগ)- শিশু ও মাতৃস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট, ঢাকা।

আরও পড়ুন: বাংলাদেশের সেরা চর্ম ও যৌন রোগ বিশেষজ্ঞদের তালিকা

অধ্যাপক ডাঃ মুক্তি রানী সাহা

ডিগ্রি : তিনি এমবিবিএস (ঢাকা), বিসিএস (স্বাস্থ্য), এফসিপিএস (গাইনী এন্ড অবস), এফসিপিএস (ইনফার্টিলিটি, ফাইনাল)।
ঠিকানা: তিনি কলপোস্কপিক ও ল্যাপারোস্কপিক সার্জন। সহকারী অধ্যাপক (গাইনী এন্ড অবস)- বঙ্গবন্ধ শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা

অধ্যাপক ডাঃ আঞ্জুমানারা বীনা

ডিগ্রি : তিনি এমবিবিএস, এমসিপিএস, ডিজিও, স্ত্রী ও প্রসূতি রোগ বিশেষজ্ঞ।
ঠিকানা: তিনি একজন প্রাক্তন রেজিস্টার- ইবনে সিনা মেডিকেল কলেজ। সহকারী অধ্যাপক, কনসালটেন্ট- ইমপাল্‌স হাসপাতাল, ঢাকা।

অধ্যাপক ডাঃ সাবিনা পারভীন

ডিগ্রি : তিনি এমবিবিএস, এফসিপিএস, এমসিপিএস, ডিজিও, ফেলো ইন ইনফার্টিলিটি এন্ড রিপ্রোডাকটিভ মেডিসিন, সিসিইউ, ডিএমইউ। তিনি স্ত্রী ও প্রসূতি রোগ বিশেষজ্ঞ।
ঠিকানা: তিনি সহযোগী অধ্যাপক (স্ত্রীরোগ ও ধাত্রীবিদ্যা বিভাগ)- ইউএস বাংলা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, ঢাকা

অধ্যাপক ডাঃ আবিদা সুলতানা

ডিগ্রি : তিনি একজন এমবিবিএস, এমএস (গাইনী এন্ড অবস)। ইনফার্টিলিটি ট্রেনিং ইন এমএমএম হাসপাতাল (ইন্ডিয়া)।
ঠিকানা: তিনি এআরটি ট্রেনিং করেছেন (আইভিএফ, আইসিএসআই) ইন কেএমসি মানিপাল ইউনিভার্সিটি, ইন্ডিয়া ও জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটি (ইউএসএ)।
ঠিকানা: তিনি সহযোগী অধ্যাপক (গাইনী)- ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, ঢাকা।

অধ্যাপক ডাঃ রাবেয়া খাতুন

ডিগ্রি : তিনি একজন এমবিবিএস, এফসিপিএস (গাইনী এন্ড অবস)।
ঠিকানা: তিনি প্রসূতি ও স্ত্রী রোগ বিশেষজ্ঞ ও সার্জন। বন্ধ্যাত্ব চিকিৎসায় বিশেষ প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত এবং আইইউআই তে অভিজ্ঞ।
ঠিকানা: তিনি সহকারী অধ্যাপক- কুমুদিনী ওমেন্স মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, টাঙ্গাইল

অধ্যাপক ডাঃ জুলেখা সায়মা সুলতানা

ডিগ্রি : তিনি এমবিবিএস, ডিজিও (গাইনী এন্ড অবস)।এছাড়াও সার্টিফিকেট কোর্স অন ডায়াবেটলজী (বাংলাদেশ ডায়াবেটিক এসোসিয়েশন)।
ঠিকানা: তিনি প্রাক্তণ সহকারী অধ্যাপক- আদ-দ্বীন মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল।

অধ্যাপক ডাঃ শাহ্‌নাজ পারভীন জবা

ডিগ্রি : এমবিবিএস (ঢাকা), বিসিএস (স্বাস্থ্য), এফসিপিএস (গাইনী এন্ড অবস)।
ঠিকানা: সহকারী অধ্যাপক (গাইনী বিভাগ)- শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ঢাকা।

ডাঃ হাসিনা আফরোজ

ডিগ্রি : তিনি এমবিবিএস, বিসিএস (স্বাস্থ্য), এমসিপিএস, এফসিপিএস, এমএস (অবস এন্ড গাইনী), ল্যাপারোস্কোপিক গাইনী সার্জারী (ইউএসএ)। তিনি ইউরো গাইনোকোলজীতে বিশেষ ট্রেনিং প্রাপ্ত।
ঠিকানা: তিনি অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান- রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, রাজশাহী।

অধ্যাপক ডাঃ মালা বনিক

ডিগ্রি : তিনি এমবিবিএস, এফসিপিএস, এমএস (অবস ও গাইনী)। তিনি গাইনী বিশেষজ্ঞ ও সার্জন।
ঠিকানা: তিনি সহযোগী অধ্যাপক (গাইনী)- স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ ও মিটফোর্ড হাসপাতাল, ঢাকা।

ডাঃ আফরোজা গণি

ডিগ্রি : তিনি এমবিবিএস, এমসিপিএস, ডিজিও, এমএস (গাইনি), ডিএমইউ (ইউএসজি), এফএমএএস(ফেলো অব মিনিমাল এক্সেস সার্জারি), বিসিএস (সাস্থ্য)।
ঠিকানা: তিনি বন্ধ্যাত্ম রোগে উচ্চতর প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত- শহিদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, ঢাকা

অধ্যাপক ডাঃ নিলুফার ইয়াসমিন

ডিগ্রি : তিনি এমবিবিএস (ঢাকা), বিসিএস (স্বাস্থ্য), এমএস (গাইনী এন্ড অবস),
ঠিকানা:
তিনি সহযোগী অধ্যাপক - শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেদিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, বন্ধ্যাত্ব বিষয়ে বিশেষ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত (ব্যাঙ্গালোর, ভারত

অধ্যাপক ডাঃ জেসমিন জেরিন

ডিগ্রি : তিনি এমবিবিএস,এফসিপিএস(গাইনি ও অবস্‌)।
ঠিকানা: তিনি সহকারী অধ্যাপক ল্যাপারোস্কপিক সার্জন- বারডেম হাসপাতাল, ঢাকা।

ডাঃ মাসুদা ইসলাম খান

ডিগ্রি : তিনি এমবিবিএস, এফসিপিএস (গাইনী এন্ড অবস)।
ঠিকানা: তিনি সহকারী অধ্যাপক প্রসূতি ও স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ ও সার্জন- বারডেম হাসপাতাল, ঢাকা।

ডাঃ আবিদা সুলতানা

ডিগ্রি : তিনি এমবিবিএস, এফসিপিএস, এমএস (গাইনী এন্ড অবস)। তিনি স্ত্রী রোগ ও প্রসূতীবিদ্যা বিশেষজ্ঞ ও সার্জন।
ঠিকানা: তিনি সহকারী অধ্যাপক (গাইনী)- ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল

ডাঃ শামীমা আখতার

ডিগ্রি : তিনি এফসিপিএস (গাইনী এন্ড অবস), এমপিএইচ, এমবিবিএস (ডিএমসি),
ঠিকানা: তিনি সহকারী অধ্যাপক (গাইনী)- মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। তিনি প্রসূতী ও স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ ও সার্জন।

ডাঃ মূনীরুন্নেসা শিল্পী

ডিগ্রি : তিনি এমবিবিএস (ঢাকা), এফসিপিএস (গাইনী)।
ঠিকানা: তিনি সহকারী অধ্যাপক (গাইনী), গাইনী ও প্রসূতী বিশেষজ্ঞ ও সার্জন- এসএসএমসি ও মিটফোর্ড হাসপাতাল, ঢাকা

ইনফার্টিলিটি বা বন্ধ্যাত্ব

ভারতের সেরা বন্ধ্যাত্ব চিকিৎসকের তালিকা

ডঃ দিনেশ কান্সাল

বিশেষজ্ঞ : তিনি প্রজনন বিশেষজ্ঞ, নিউ দিল্লি, ভারত, তিনি বিভাগীয় প্রধান
ঠিকানা: তিনি বিএলকে সুপার স্প্যানিশ হাসপাতাল, নিউ দিল্লি । ডাঃ দীনেশ কানসাল ভারতের একজন নেতৃস্থানীয় স্ত্রীরোগ ও প্রসূতি বিশেষজ্ঞ।
ডিগ্রি : তিনি অ্যাডেনোমিওমেক্টমি, মায়োমেকটমি ফাইব্রয়েডস, সিস্ট ডিম্বাশয়, একটোপিক, প্রিস্যাক্রাল নিউরেক্টমি, এন্ডোমেট্রিওসিস, বন্ধ্যাত্ব, টিউবোপ্লাস্টি ইত্যাদিতে বিশেষজ্ঞ।
একটি অ্যাপায়েন্টমেন্ট বুক করুন: www.vaidam.com

আরও পড়ুন: বাংলাদেশের সেরা নিউরোলজিস্ট ডাক্তার | Neurology Doctor

ডাঃ নুতন আগরওয়াল

বিশেষজ্ঞ : তিনি একজন স্ত্রীরোগ ও ধাত্রীবিদ্যা বিশেষজ্ঞ
ডিগ্রি : তিনি গর্ভাবস্থার ক্ষতি, পিসিওএস, অস্বাভাবিক জরায়ু রক্তপাত, মেনোপজ, ডিম্বাশয়ের টিউমার, ল্যাপারোস্কপিক সার্জারি, বন্ধ্যাত্ব, আইভিএফ এবং যোনি প্লাস্টিকের সার্জারি পরিচালনা করেন।
একটি অ্যাপায়েন্টমেন্ট বুক করুন: www.vaidam.com 

ডাঃ অলকা ক্রিপলানি

ঠিকানা: তিনি দিল্লি এনসিআর-এর অন্যতম সেরা গাইনোকোলজিস্ট এবং প্রসূতি বিশেষজ্ঞ।
ডিগ্রি : তিনি গাইন-ল্যাপ গর্ভাবস্থা সার্জারি, উচ্চ-ঝুঁকিপূর্ণ গর্ভাবস্থা এবং কৃত্রিম প্রজনন প্রযুক্তিতে বিশেষজ্ঞ।
একটি অ্যাপায়েন্টমেন্ট বুক করুন: www.vaidam.com

ডাঃ হৃষিকেশ ডি পাই

ঠিকানা: তিনি দিল্লি এনসিআর-এর একজন বিখ্যাত গাইনোকোলজিস্ট এবং প্রসূতি বিশেষজ্ঞ,তিনি উচ্চ-ঝুঁকিপূর্ণ গর্ভাবস্থা, ল্যাপারোস্কোপি, হিস্টেরোস্কোপি, আইইউআই ইত্যাদিতে দক্ষ চিকিৎসক ।
তিনি মাইক্রোম্যানিপুলেশনের ক্ষেত্রে অগ্রগামী এবং ভারতে প্রথম অ্যাসিস্টেড লেজার হ্যাচিং ইউনিট প্রতিষ্ঠা করেন।
একটি অ্যাপায়েন্টমেন্ট বুক করুন: www.vaidam.com 

ডাঃ শক্তি ভান খান্না

বিশেষজ্ঞ : তিনি একজন গাইনোকোলজিস্ট এবং ওস্টেট্রিকিয়ান তার গাইনোলোজি বিভিন্ন ক্ষেত্রে অভিজ্ঞতা আছে। তিনি বন্ধ্যাত্ব এবং উচ্চ ঝুঁকি গর্ভধারণ এবং পেলেভিক পুনর্গঠন সার্জারি করেন।
একটি অ্যাপায়েন্টমেন্ট বুক করুন: www.vaidam.com

ডাঃ নুতন আগরওয়াল

বিশেষজ্ঞ : তিনি একজন স্ত্রীরোগ ও ধাত্রীবিদ্যা বিশেষজ্ঞ
তিনি গর্ভাবস্থার ক্ষতি, পিসিওএস, অস্বাভাবিক জরায়ু রক্তপাত, মেনোপজ, ডিম্বাশয়ের টিউমার, ল্যাপারোস্কপিক সার্জারি, বন্ধ্যাত্ব, আইভিএফ এবং যোনি প্লাস্টিকের সার্জারি পরিচালনা করেন।
একটি অ্যাপায়েন্টমেন্ট বুক করুন: www.vaidam.com

ডাঃ সুষমা বেদ

বিশেষজ্ঞ : তিনিএকজন অত্যন্ত দক্ষ সিনিয়র ভ্রূণবিজ্ঞানী যার বিদেশে এবং ভারতে কাজ করার বিভিন্ন অভিজ্ঞতা রয়েছে।
বিশেষজ্ঞ : তিনি জার্মানির বন বিশ্ববিদ্যালয়ে বিখ্যাত বিশেষজ্ঞ ।
তিনি ৬০০০ এরও বেশি আইভিএফ চক্র পরিচালনা করেছেন
একটি অ্যাপায়েন্টমেন্ট বুক করুন: www.vaidam.com

ডাঃ সঙ্গীতা এস

বিশেষজ্ঞ : তিনি একজন নেতৃস্থানীয় এবং দক্ষ আইভিএফ বিশেষজ্ঞ
বিশেষজ্ঞ : তিনি একজন পেশাদারী ইন্ডিয়ান সোসাইটি ফর অ্যাসিস্টেড রিপ্রোডাকশন এবং বেঙ্গালুরু সোসাইটি অব অবস্টেট্রিক্স অ্যান্ড গাইনোকোলজির কর্ণাটক চ্যাপ্টারের সদস্য।
একটি অ্যাপায়েন্টমেন্ট বুক করুন: www.vaidam.com

ডাঃ মীনাক্ষী দুয়া

বিশেষজ্ঞ : তিনি একজন বিখ্যাত প্রসূতি বিশেষজ্ঞ, স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ এবং আইভিএফ বিশেষজ্ঞ।
ডিগ্রি : তিনি মহিলা বন্ধ্যাত্ব চিকিত্সা, দাতা গর্ভধারণ সারোগেসি, পুরুষ বন্ধ্যাত্ব চিকিত্সা, ইন ভিট্রো ফার্টিলাইজেশন (আইভিএফ) ইত্যাদিতে বিশেষজ্ঞ।
ঠিকানা: তিনি ভারতীয় মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন এবং অল ইন্ডিয়া কংগ্রেস অফ অবস্টেট্রিক্স অ্যান্ড গাইনোকোলজির একজন সম্মানিত সদস্য।
একটি অ্যাপায়েন্টমেন্ট বুক করুন: www.vaidam.com

ডাঃ সুলভা অরোরা

বিশেষজ্ঞ : তিনি একজন স্বনামধন্য বন্ধ্যাত্ব বিশেষজ্ঞ, গাইনোকোলজিস্ট, এবং প্রসূতি বিশেষজ্ঞ
বিশেষজ্ঞ : তিনি অন্তঃসত্ত্বা ইনসেমিনেশন (IUI), কৃত্রিম গর্ভধারণ, দাতা গর্ভধারণ সারোগেসি, জরায়ু ফাইব্রয়েড চিকিত্সা ইত্যাদিতে বিশেষজ্ঞ
একটি অ্যাপায়েন্টমেন্ট বুক করুন: www.vaidam.com

ডাঃ নেহা গুপ্তা

বিশেষজ্ঞ : তিনি ভারতের একজন শীর্ষস্থানীয় বন্ধ্যাত্ব বিশেষজ্ঞ।
বিশেষজ্ঞ : তিনি দরিদ্র প্রতিক্রিয়াশীলদের ব্যবস্থাপনা এবং আইভিএফে বারবার ইমপ্লান্টেশন ব্যর্থতা, বারবার গর্ভাবস্থার ক্ষতি, উচ্চ-ঝুঁকিপূর্ণ গর্ভাবস্থা পরিচালনা ইত্যাদিতে বিশেষজ্ঞ
একটি অ্যাপায়েন্টমেন্ট বুক করুন: www.vaidam.com

শেষ কথা

ইনফার্টিলিটি বা বন্ধ্যাত্ব বর্তমান সময়ে এই ধরনের সমস্যা এখন অনেক স্বামী স্ত্রীর মধ্যে দেখা যায়। যার জন্য একটি পারিবারিক ভালো সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যায়। তৈরি হয় স্বামী স্ত্রীর ভিতরে দূরত্ব। আবার এখন বর্তমান সমাজে তো এই সমস্যার জন্য একজন মেয়েকে শুধু তাই করা হয় যেটা এখনকার যুগে যুক্তিহীন। 

তবে আপনি যদি অল্প সময়ে খুব একজন ভালো গাইনি স্পেশালিস্টের সাথে যোগাযোগের মাধ্যমে আপনারা আপনাদের এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। 

আজকের এই আর্টিকেলে আমি বাংলাদেশের এবং ভারতের সেরা কিছু ইনফার্টিলিটি বা বন্ধ্যাত্ব বিশেষজ্ঞদের তালিকা দিয়েছি। আমরা আশা করি থেকে আপনি একজন ভালো ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করে পরামর্শ এবং চিকিৎসা নিয়ে উপকৃত হবেন। এইরকম আরো নানা ধরনের রোগের চিকিৎসার জন্য ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ঘুরে দেখতে পারেন।

Previous Post Next Post